আমার মনে হলো কেও আমাকে জরিয়ে ধরে আছে

আমার মনে হলো কেও আমাকে জরিয়ে ধরে আছে, তাই আমি চোখ খুললাম আর চোখ খুলে দেখলাম যে আমার

বউ আমায় জরিয়ে ধরে আছে মেয়েটির গায়ের রং একেবারে ধবধবে সাদা এবং দেখতে খুব মায়াবি আমি তো প্রায়

ক্রাশ খেয়ে গেলাম কিন্তু আমার তো বউ নেই বিয়েও করি নি তাহলে এ আসল কি করে তাই আমি তাকে ছাড়িয়ে মতে

আরও ভালোবাসার গাল্প পেতে ভিজিট করুউঃ bentrick.xyz

আমার মনে হলো কেও আমাকে জরিয়ে ধরে আছে

তাকে জাগতে না দিয়ে লাইট টা জালালাম আর দেখি যে মেয়েটি গায়েব কিন্তু এ কি হচ্ছে আমার সাথে আমার

স্পষ্ট মনে আছে মেয়েটি আমায় জরিয়ে ধরে ছিল কিন্তু সেই মেয়েটি গেলো কোথায় নাহ আমি আবার সপ্ন দেখছি না

তো হ্যা আমি মনে হয় সপ্নই দেখছি তাই আমি ভাব্লাম নাহ এই টা সপ্নই হবে তাই আর না ভেবে শুয়ে পরলাম তাই

আর দেরি না করে টয়লেট সেরে জামা পরে রেডি হয়ে নিলাম আর আমার বাড়ির মেইন দরজায় তালা লাগিয়ে

গাড়িতে বসে ড্রাইভ করতে লাগলাম আয়হায় গাড়ি চলে না কেন ওও ধুর আপনাদের সাথে কথা বলতে বলতে

গাড়ি স্টার্ট দিতেই ভুলে গিয়েছি তাই আর কিছু না ভেবে

গাড়ি টা ড্রাইভ করতে লাগ্লাম আর এভাবে ড্রাইভ করতে করতে ফেরি ঘাট এ আসলাম সেখানে একটু হাল্কা

পাতলা কেছু খেয়ে আবার গাড়িটাকে চালিয়ে ফেরির উপর উঠালাম এরপর ফেরির প্রায় নদি পার হতে ১ ঘন্টা লেগে গেলো

আপনাদের তো বলাই হয় নি আমার গ্রাম কোথায় আমার গ্রাম এর নাম হচ্ছে শরিয়তপুর আর হ্যা পদ্দাসেতুর কাজ প্রায় হয়ে

গিয়েছে পুরো টা হয়ে গেলে আর কষ্টকরে ফেরি পারাপার করতে হবে নাহ তখন আমার গ্রামের বাড়ি যেতে সর্বোচ্চ ২ ঘন্টা

আমার মনে হলো কেও আমাকে জরিয়ে ধরে আছে

লাগবে তারপর ফেরি থেকে নেমে যেই মেইন রোড এ গাড়ি নিয়ে উঠব তখন ইই কে যেনো আমায় ডাকল তখন ডানে

তাকিয়ে দেখি যে এভাবে যতই দিন যাচ্ছিলো ততই কাজের চাপ বাড়তে ছিলো আমার উপর কিছু তো করার নাই গরিব হয়ে যখন জন্ম নিয়েই ফেলছি তখন তো কাজ করতেই হবে তাও আবার অনেক কষ্ট করে একটা

চাকরি জোগাল করছি তাই নিরবে সব কাজ করতেছি মা সবে মাত্র কয়েক মাস হলো চাকরিতে জয়েন করছি এখন বিয়ে করার মতো সময় নেই

About admin

Check Also

চোখ মেলে দেখলাম দরজা লাগানো আমার ঘরে

চোখ মেলে দেখলাম দরজা লাগানো আমার ঘরে

চোখ মেলে দেখলাম দরজা লাগানো আমার ঘরে, অর্ণব তো দূরের কথা তার ছায়াও নেই। আর …

Leave a Reply

Your email address will not be published.