এই উপহার যে কেউ যে কাউকে যেকোনো সময়ে

এই উপহার যে কেউ যে কাউকে যেকোনো সময়ে, যেকোনো অবস্থায় যেকোনো অবস্থানে যেকোনো অবস্থান থেকে

দিতে পারেন। সুতরাং, বিয়ের সময় বা তার পরে স্বামী স্ত্রীকে বা স্ত্রী স্বামীকে যেকোনো কিছু উপহার দিতে পারেন।

স্বামীর দেওয়া উপহার সাধারণত মহরের মধ্যে অন্তর্ভুক্ত থাকে না। কখনো যদি মূল্যবান গয়না ও অলংকার মহরের মধ্যে

আরও ভালোবাসার গাল্প পেতে ভিজিট করুউঃ bentrick.xyz

এই উপহার যে কেউ যে কাউকে যেকোনো সময়ে

তখন বলা হয়ে থাকে ‘জেওর ও মহর’ এত টাকা এবং জেওর বা অলংকার বাবদ ওয়াসিল বা পরিশোধ এত টাকা।

কনের পরিবারের পক্ষ থেকে শর্ত ও দাবি ছাড়া বরকে কোনো উপহার দিতে বাধা নেই। তবে প্রথা বা অঘোষিত শর্তরূপে

দিতে বাধ্য হলে তা পরিহারযোগ্য। বিবাহ উপলক্ষে আত্মীয়স্বজন ও বন্ধুবান্ধব বর ও কনেকে উপহার দিতে পারেন।

তবে এটি যেন প্রথারূপে না হয়। উল্লেখ্য যে মহর প্রদেয়, উপহার অফেরতযোগ্য। বিয়ের সময় প্রদত্ত উপহারসামগ্রী

বা অর্থের মালিক বর বা কনে। যে উপহার যাঁকে দেওয়া হয়েছে, তিনিই সেই উপহারের মালিক। তৃতীয় কোনো ব্যক্তি,

যেমন শ্বশুর-শাশুড়ি বা অন্য কেউ মালিকের পূর্ব অনুমতি ছাড়া এসব উপহার কাউকে দিতে পারবেন না এবং

যথেচ্ছ ব্যবহারও করতে পারবেন না। স্ত্রী বা কনে প্রাপ্ত উপহার নিজে ব্যবহার করা ছাড়াও যাকে খুশি কারও অনুমতি

ছাড়া দিতে পারবেন এতে স্বামী বা বরপক্ষের

কারও কোনো এখতিয়ার থাকবে না যদিও সেই উপহারসামগ্রী স্বয়ং স্বামী বা বরপক্ষই দিয়ে থাকে। তথ্যসূত্র

প্রথম আলো অনলাইন পোর্টাল, ২ ফেব্রুয়ারী, ২০১৮ কথাগুলো শোনার পর উপস্থিত তানহার মামা এবং ওর মা যারপরনাই আনন্দিত হলেন।

এবং বিয়ের দিন ধার্য করা হলো পরবর্তী শুক্রবারে। রাত দশটায় বিছানায় শুয়ে তানহাকে কল দিলাম। ও সিভ করে বললো,

অনলাইনে আসুন! জরুরী কথা আছে। বিষয়টি ঠিক মনে হলোনা আমার কাছে। আমি ফোনটা কেটে দিলাম এবং ডাটা অন করে ওর মেসেজের জন্য অপেক্ষা করতে সেটা আমরাও বুঝ‌তে পার‌ছি না। হাতপা‌লের সব ইলি‌ট্রিকাল সং‌যোগ গু‌লো রোজ চেক করা হয়।

এই উপহার যে কেউ যে কাউকে যেকোনো সময়ে

এমন হবার কথা না, এখন এটা এক‌সি‌ডেন্ট না‌কি প‌রিক‌ল্পিত কোন বিষয় তা বোঝা যা‌চ্ছে না, পু‌লিশ খবর দেয়া হ‌য়ে‌ছে, দে‌খি তারা কি ক‌রে! হাসপাতা‌লে ছয়জন ডাক্তারের সা‌থে এমন ঘটনা ঘট‌ায়, চার‌দি‌কে হৈ‌চৈ প‌ড়ে গে‌ছে।

ওনা‌দের পু‌রোপু‌রি সুস্থ হ‌তে কজ‌নের প্রায় প‌নো‌রো দিন এবং বা‌কি দুজ‌নের এক মাস লাগ‌বে। তত‌দিন তা‌দের এত রোগী কি ক‌রে সামলা‌বো সেটা ভে‌বে হাসপাতাল অথ‌রে‌টির মাথা পু‌রো খারাপ হ‌য়ে আছে।

কি কর‌বে ঠিক ভে‌বে পা‌চ্ছে না! এ বিষ‌য়ে তদন্ত ক‌মি‌টি বসা‌নো হ‌বে যতদূর শু‌নে‌ছি। আপনা‌দের আর কিছু জানার থাক‌লে প‌রে বলুন আমার ‌কিছু কাজ আছে।

About admin

Check Also

টেবিলে এক গ্লাস পানি ছিল পানিটা পান করলাম

টেবিলে এক গ্লাস পানি ছিল পানিটা পান করলাম

টেবিলে এক গ্লাস পানি ছিল পানিটা পান করলাম, সাথে সাথেই মাথা গুড়াইতে লাগল। নিতে পারছিলাম …

Leave a Reply

Your email address will not be published.