তোর সাথে তুই ভাষাটাই ঠিক বিশ্বাস হচ্ছে না

তোর সাথে তুই ভাষাটাই ঠিক বিশ্বাস হচ্ছে না, তুই আমার সাথে এমন করলি। এমন করলি কেন?

ভালোবাসা নিয়ে খেলেছিস কেন? তুই আমার সম্পত্তি চাইতি আমি তুকে দিয়ে দিতাম কিন্তু তুই আমার ভালোবাসা চাইলি

কেন? কী দোষ করেছে আমার এই অবুঝ মন? মনটাকে এভাবে ভেঙে দিলি? আমারই ভুল হয়েছে তুকে বিশ্বাস

করে। তোর কথার পিছনে উদ্দেশ্য কী ছিল সেটা বুঝতে পারেনি, বুঝতে পারলে কখনও এই ভুলটা করতাম না।

আরও ভালোবাসার গাল্প পেতে ভিজিট করুউঃ bentrick.xyz

তোর সাথে তুই ভাষাটাই ঠিক বিশ্বাস হচ্ছে না

আবির এবং তার বাবা আমাকে টেনে হিছড়ে রুমে নিয়ে গেল। রুমে নিয়ে বিছানাই ছুড়ে মারল। তারপর একটা

বালিশ নিয়ে আমার মুখে ছেপে ধরল। আমি আপ্রাণ চেষ্টা করছি তাদের হাত থেকে বাঁচার জন্য কিন্তু পারিনি।

আমাকে মেরেছে সেটা করিম চাচা দেখেছিল বলে তাকেও মেরে ফেলি মানুষ রুপি এই নরপিশাচরা। শুধু মেরে শান্তি

পায়নি আমাকে ওই শয়তান রা মারার পর একটা গর্তে লোকিয়ে রাখে জাতে কেউ জানতে না পারে এই বলে ফারিয়া

থামল। চাঁদের উজ্জল আলোই দেখতে পারছি তার চোখ দুটি শান্ত হয়ে গেছে এবং তা থেকে পানি গড়িয়ে পড়ছে মাটিতে।

কিছুক্ষণ আগে যার চোখ দু’টি আগুনের মতো লাল ছিল এখন সেই চোখ থেকে বৃষ্টির মতো পানি ঝড়ছে।

নিজের অজান্তে আমার চোখেও পানি চলে আসল। টের পেলাম ও অভিমান করেছে। আসলে, মানুষ তার সাথেই অভিমান

করে সে যাকে ভালোবাসে এবং পছন্দ করে যার

তার সাথে অভিমান করা উচিৎ নয়। আর যদি করেনও তাহলে সেখানে অভিমানের সৌন্দর্যটা নষ্ট হয়ে যায়।

কারণ, যে অভিমান করে সে চায় তার অভিমান ভাঙ্গানো হোক। সে চায় তার প্রিয় মানুষটা তাকে একটু বেশিই কেয়ার করুক।

সে চায় তার ভালোবাসার মানুষটি সারাক্ষণ তাকে নিয়েই মগ্ন থাকুক। তবে, সারাক্ষণ মগ্ন থাকা মানে এই নয় যে, দুনিয়ার সবকিছু ছেড়ে তাকে নিয়েই পড়ে থাকুক সে এটা চায়!

বরং, এর মানে হলো, সে চায় তাকে দেয়া সময়টা যেন দুজনের স্পেশালভাবে অতিবাহিত হয়। হোক না সেটা দিবা কিবা রাত্রির অল্প কিছু সময়! অন্য মেয়েদের সাথে কথা বলবো শুনে বেশ রেগে গেল ও। আমি চুপচাপই রইলাম।

তোর সাথে তুই ভাষাটাই ঠিক বিশ্বাস হচ্ছে না

মেয়েরা এমনই হয়। স্ত্রীরাও। তারা সবকিছুর ভাগ দিবে তবে নিজের স্বামীর দিকে যদি পরনারী নজর দেয় সেটা তারা সহ্য করতে পারেনা। আর এটাই স্বাভাবিক।

আমি কল্পনা করতে পারি। রাগলে যেকোন মেয়ের সৌন্দর্যই শতগুণ বেড়ে যায়। কপাল আর নাক ঘেমে যায়।

ঘামের ফোটাগুলোকে তখন মুক্তোর দানার মতো দেখায়। চেহারা রক্তিম বর্ণ ধারন করে। কিছু অবাধ্য চুলে এসে কপালের ঘামের সাথে লেপ্টে যায়। এবার আমি মুখ খুললাম। বললাম,

About admin

Check Also

মৌশি নিজেকেও বেশ বকাঝকা করলো মনে মনে

মৌশি নিজেকেও বেশ বকাঝকা করলো মনে মনে

মৌশি নিজেকেও বেশ বকাঝকা করলো মনে মনে একটা প্রতারকের জন্য নিজের হ্যাসবেন্ডকে অবহেলায় জর্জরিত করে। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.