দ্রুত নিচে নেমে জানালা দিয়ে বেরিয়ে পড়লাম

দ্রুত নিচে নেমে জানালা দিয়ে বেরিয়ে পড়লাম বাহিরে বের হওয়ার পর পরই ঠান্ডা বাতাসে শরীরে অন্যরকম একটা

প্রশান্তি অনুভব হলো। মনে হচ্ছে এতক্ষণ পৃথিবী থেকে অনেক দূরে একটা ভিন্নস্থানে চলে অবস্থান করছিলাম,যেখানে প্রাণ

খুলে শ্বাস নেওয়াটাই বড্ড কষ্টের। একটা লম্বা শ্বাস নিয়ে বাগান পেরিয়ে প্রাচীরের দিকে এগিয়ে যেতে লাগলাম।

আরও ভালোবাসার গাল্প পেতে ভিজিট করুউঃ bentrick.xyz

দ্রুত নিচে নেমে জানালা দিয়ে বেরিয়ে পড়লাম

এ বাড়িতে কিছু তো একটা গন্ডগোল আছে। তবে কি সেটা? আর সেটাই আমাকে খুঁজে বার করতে হবে।

প্রাচীরের কাছে এসে একটাবার দোতলার বেলকনির দিকে তাকালাম,রোদের আলোতে লকনিটা চকচক করছে।

কেন যানি মনে হচ্ছে বাচ্চা মেয়েটা রেলিং ধরে দাঁড়িয়ে আছে,আর ক্ষীণ দৃষ্টিতে আমার দিকে তাকিয়ে আছে।

দেরি না করে প্রাচীর টপকিয়ে বাহিরে এসে সোজা বাড়ির দিকে রওনা দিলাম। বাড়ি এসেই টেবিলের উপর থাকা পানির

জগটা উপরে ধরে ঢকাঢক এক নিঃস্বাসে অর্ধেক শেষ করে একটা দীর্ঘশ্বাস ছেড়ে ধপাস করে সোফাতে বসে পড়লাম।

এতক্ষণে যেন শরীরে প্রাণের সঞ্চারণ হলো। নীলা এসে কাঁধে হাত রাখতেই চমকে উঠে বললাম এ কিভাবে সম্ভব,

একটা মেয়ে আজ দশ বারো বছর পরও একই রকম কিভাবে

থাকতে পারে? আর গতকাল যদি আমি ভুল দেখেও থাকি তাহলে ঐ মেয়েটাকেই কেন দেখলাম! বাকিদের চোখে তাহলে কেন পড়লো না?

তাহলে কি মেয়েটার বয়সটা ঐ পাঁচ-ছয় বছরেই আটকে রয়েছে? আবার গতরাতে দিব্যি সবকিছু মনে হলো নিজের চোখের

সামনেই ঘটে গেলো,অথচ সকালে উঠে নীলার মুখে যা শুনলাম,তাঁর সাথে সেই সবের কোনোকিছুই ঘটেনি

তাহলে কি আমি ইদানিং একটু বেশিই কল্পনাপ্রবণ হয়ে যাচ্ছি? মাথাতে ঢুকছে না। এসব কি হচ্ছে আমার সাথে নীলার কথাতে সম্মতি ফিরলো আমার।সোফা থেকে উঠে চোখ-মুখে পানি ছিটিয়ে খেতে খেতে বসলাম।

খাবার খাওয়ার এক পর্যায়ে রান্না ঘরের এক পাশে হঠাৎ করে দেখলাম ঐ বাড়ির ফ্রেমে দেখা সেই মহিলাটি দেওয়ালের সাথে হেলান দিয়ে দাঁড়িয়ে আছে। বড় অদ্ভুত দৃষ্টিতে আমার দিকে তাকিয়ে আছে সে।

দ্রুত নিচে নেমে জানালা দিয়ে বেরিয়ে পড়লাম

যেন কিছু একটা বলতে চায়ছে আমাকে। আমি চিৎকার দিয়ে উঠে বললাম, কে তুমি? তুমি ঐ বাড়ির মহিলাটা না! এইখানে কি করছো? নীলা আমার চেচামেচি শুনে সেদিকে তাকালো,তারপর ললো, কোন মহিলা,

আরে ওটা তো আমাদের সারদা মাসি। গতকাল রাতেই চলে এসেছে গ্রাম থেকে। আমি নিজেকে শান্ত আবারো তাকালাম সেদিকে। হ্যা নীলা তো ঠিকি বলছে,সারদা মাসি দাঁড়িয়ে আছে। হঠাৎ এমন প্রশ্ন করাতে সে বেশ ইতস্তত হয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছে।

About admin

Check Also

চোখ মেলে দেখলাম দরজা লাগানো আমার ঘরে

চোখ মেলে দেখলাম দরজা লাগানো আমার ঘরে

চোখ মেলে দেখলাম দরজা লাগানো আমার ঘরে, অর্ণব তো দূরের কথা তার ছায়াও নেই। আর …

Leave a Reply

Your email address will not be published.