মৌশি বুঝে আরিয়ান আর্শি মা বদতে কলিজা হাজির

মৌশি বুঝে আরিয়ান আর্শি মা বদতে কলিজা হাজির, তবে দুজনের একটা বিষয় মৌশির পছন্দের।

মাকে হাজার ভালোবাসেও মার অন্যায় ভুল গুলোকে প্রসরয় দেয় না। বরং সুন্দর ভাবে মাকে বুঝায় আম্মা এটা ভুল।

কখনও মার সাথে চেঁচামেচি করতে ভুলেও আর্শি আরিয়ানকে দেখেনি মৌশি তবে সুন্দর করে বুঝাতে দেখছে।

শাশুড়ি তার প্রথম ক্ষেপে থাকলেও পরবর্তীতে ছেলে মেয়ের কথা অনুযায়ী চলতেও দেখেছে মৌশি।

আরও ভালোবাসার গাল্প পেতে ভিজিট করুউঃ bentrick.xyz

মৌশি বুঝে আরিয়ান আর্শি মা বদতে কলিজা হাজির

আর আরিয়ান আর্শির মতো ভাই বোনের সম্পর্ক ও আর দুটো দেখেনি। ওরা কথা বললে মনে হবে ভার্সিটির ক্যাম্পাসে

বসে দুই দোস্ত কথা বলছে। আরিয়ানকে একমাত্র বোনের সাথেই হাসতে দেখেছে মৌশিম এই ব্যাপার গুলো খুব ভালো

লাগে মৌশির। তাছাড়া এখানে পড়াশোনা করার দরুন এলাকার অনেককেই দেখেছে কোনও সমস্যা হলে আরিয়ানের

কাছে আসে। বেশ বড় সড় ফ্রেন্ডগ্যাং আছে ওর। তবুও উগ্র আচরণ কিংবা চলা ফেরার কোনও লক্ষ্মণ ছেলেটার

মধ্যে নেই। এসব ছোট ছোট কারণ গুলোই মৌশির মনে দাগ কেটেছে। আরিয়ান অজান্তেই একটা জায়গা তৈরী করে

নিয়েছে নিজের জন্য মৌশির মনে। সেটা হয়তো আরিয়ান নিজেও জানেনা। এসব দিক থেকে আরিয়ানকে

নিয়ে মৌশি গর্বিত স্ত্রী তবুও মৌশির সাথে আরিয়ানের

ব্যাবহারের জন্য এটাই বলবে। হ্যাসবেন্ড হিসেবে আরিয়ান পার্ফেক্ট নয়। যদিও ভুল ওরো আছে। ঘড়ির কাটা তখন বারোটা আরিয়ান তখনও ফিরেনি।

মৌশির এবার চিন্তার সাথে সাথে ভয় করছে। বিয়ের পর আরিয়ানকে ১০ টার পর বাসায় কখনও ফিরতে দেখেনি।

শুধু একবার রাত দুটোয় ফিরেছিলো বনানী থেকে বাইক এক্সিডেন্ট করে৷ আজও কী তেমন কিছুই হয়েছে নাকি ভেবে আরও চিন্তায় কপালে ভাজ পরলো। বারান্দায় গিয়ে দাঁড়িয়ে রাস্তার দিকে তাকিয়ে রইলো।

হঠাৎ মাথায় এলো ফোন দিলেই তো পারে একটা। আনমনেই মৌশি ভাবে। কী আশ্চর্য ফোনের মতো যন্ত্র থাকতে ও এখানে চিন্তায় মরছে বসে বসে।

মৌশি বুঝে আরিয়ান আর্শি মা বদতে কলিজা হাজির

এতো বোকা কেন ও? অতঃপর দ্রুত রুমে এসে ফোন হাতে নিয়ে ফোন দিতেই রুমেই শব্দ করে আরিয়ানের ফোনের রিংটোন বেজে ওঠে।

কাউচের উপর ফোন পরে আছে আরিয়ানের অফিসের ল্যাপটপের নিচে। কল কেটে গিয়ে ফোন হাতে নিতেই।

তীক্ষ্ম শব্দে কলিং বেল বেজে উঠলো। মৌশি দ্রুত আরিয়ানের ফোনটা রেখে জায়গা মতো নিজের ফোন হাতে করে নিয়ে গিয়েই দরজা খুলে দেয়।

আরিয়ানকে স্বাভাবিক দেখে স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলে মৌশি। আরিয়ান মৌশির দিকে এক নজর চঞ্চল চোখে তাকিয়ে। ভেতরে যেতে যেতে বলল,

About admin

Check Also

চোখ মেলে দেখলাম দরজা লাগানো আমার ঘরে

চোখ মেলে দেখলাম দরজা লাগানো আমার ঘরে

চোখ মেলে দেখলাম দরজা লাগানো আমার ঘরে, অর্ণব তো দূরের কথা তার ছায়াও নেই। আর …

Leave a Reply

Your email address will not be published.